সোমবার, সেপ্টেম্বর ২৪

কুমিল্লা ইংরেজ কবরস্থানে দেখার মত অনেক কিছুই আছে 

এম এম এইচ রায়হানঃ-

দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের স্মৃতি বিজরিত এ জায়গা থেকে শুরু হতে পারে আপনার কুমিল্লা ভ্রমন। বুড়িচং উপজেলার একটি সুদৃশ্য পর্যটন কেন্দ্র হিসেবে ময়নামতি ওয়ার সিমেট্রি উল্লেখযোগ্য। উপজেলার ময়নামতি ইউনিয়নে অবস্থিত উক্ত পর্যটন কেন্দ্রটি কুমিল্লা ক্যান্টনমেন্ট এলাকা অধ্যুষিত হওয়ায় এর নিরাপত্তা ব্যবস্থা অত্যন্ত সুন্দর ও সুগঠিত। কুমিল্লা ক্যান্টনমেণ্ট থেকে সিলেট সড়কে এক কিলোমিটার সামনে গেলেই পাবেন ঐতিহাসিক এ স্থানটি।

দ্বিতীয় বিশ্ব যুদ্ধের সময় দক্ষিন-পূর্ব এশিয়া এবং প্রশান্ত মহাসাগরীয় এলাকায় সদর দপ্তর ছিল কুমিল্লায়। ৫ একর জায়গা জুড়ে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে শহীদ ৭৩৮ জন সৈনিকের কবর আছে এখানে। এর মধ্যে ৩৫৭ জন ব্রিটিশ সৈনিক, ১৭৮ জন ভারতীয়, ৮৬ জন পশ্চিম আফ্রিকান, ৫৬ জন পূর্ব আফ্রিকান, ২৪ জন জাপানিজ, ১২ জন কানাডিয়ান এবং অষ্ট্রেলিয়ান, ৪ জন নিউজিল্যান্ডের, ১ জন করে পোলিশ, বেলজিয়াম, বার্মিজ এবং রোডেশীয় সৈনিকের এবং ১ জন বেসামরিক লোকের কবর আছে এ সিমেট্রিতে।

কুমিল্লা ওয়ার সিমেট্রির রক্ষণাবেক্ষণ করে কমনওয়েলথ ওয়ার গ্রেভস কমিশন। ঈদের দিন ছাড়া বছরের সবদিনই সকাল ৭টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত খোলা থাকে।

এর রক্ষণাবেক্ষণের জন্য একজন তত্ত্বাবধায়কের নেতৃত্বে একদল দক্ষ মালি রয়েছে। যাদের সুন্দর ব্যবস্থাপনায় ময়নামতি ওয়ার সিমেট্রি দেশ এবং বিদেশের একটি উল্লেখযোগ্য পর্যটন কেন্দ্র হিসেবে বিবেচিত। স্থানীয়দের ভাষায় একে ইংরেজ কবরস্থান বলা হলেও আসলে এখানে সারিবদ্ধভাবে শায়িত রয়েছেন মুসলিম, খ্রিস্টান, ইহুদি, হিন্দু এবং বৌদ্ধ। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে নিহত এবং যুদ্ধে আহত হয়ে পরে মারা যাওয়া সাধারণ সৈনিক থেকে ব্রিগেডিয়ার পদমর্যাদার এখানে সমাহিত করা হয়েছে।

Comments

comments

Powered by Facebook Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *