বৃহস্পতিবার, জুন ২১

গিনেজ বুকে রেকর্ড গড়তে নান্দাইলে রাস্তায় ৪ হাজার মিটার আল্পনা

পহেলা বৈশাখ উপলক্ষে ময়মনসিংহের নান্দাইলে চার হাজার মিটার সড়কজুড়ে দেশের সর্ববৃহৎ বৈশাখী আলপনা তৈরির কাজ করছে নান্দাইল পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের উদ্যমী ছাত্রীরা। চৈত্রের খর তাপ মাথায় নিয়ে অসহ্য গরমে মনের সাহস আর শক্তিকে পুঁজি করে রং তুলি হাতে নিয়ে রাস্তায় নেমে চার হাজার মিটার আলপনা এ্যাঁকে গিনেস বুকে রেকর্ড গড়তে চায় তারা।

পুরনো রেকর্ড ভেঙ্গে নতুন রেকর্ড গড়ার স্বপ্ন নিয়ে শুক্রবার সকাল ৬টায় রং-তুলি হাতে নিয়ে আলপনা আঁকার যুদ্ধে নেমেছে নান্দাইলের ১ হাজার ৯ শত শিার্থী। ময়মনসিংহ-কিশোরগঞ্জ মহাসড়কের নান্দাইলের দশালিয়া থেকে ঝালুয়া বাজার পর্যন্ত চার হাজার মিটার রাস্তার আলপনা তৈরি কাজের উদ্বোধন করেন স্থানীয় সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আবেদিন খান তুহিন। নান্দাইল পাইলট সরকারি বালিকা বিদ্যালয়ের আয়োজনে এ আলপনা তৈরিতে পৃষ্ঠপোষকতা করছে আরএফএল গ্রুপের রংয়ের ব্র্যান্ড ‘রেইনবো’।

এই সৃজনশীল কর্মকান্ডের উদ্দ্যোক্তা নান্দাইল পাইলট বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্রী দীপানিতা দ্বীপ, অর্থীময়ী দে, ফারিয়া আফরিন, মৌমুমী আক্তার, আফসানা শারমীন, আদিয়া সুলতানা, নুসরাত জাহান রিয়া, ঐশীকর তৃনা, রায়হানা ইসলাম জানান, নান্দাইলের স্কুল ছাত্রীদের উদ্যোগে গিনেজ বুকে রেকর্ড গড়তে চার হাজার মিটার রাস্তায় আলপনা আকাঁর কাজের প্রায় শেষ হয়েছে। চৈত্রের প্রখর রোদ্রে অসহ্য গরমে যবুতবু হয়েও মনের সাহস আর শক্তিকে পুঁজি করে আমরা মনের আনন্দে কাজ করছি। এদিকে শিার্থীদের এ কাজে উৎসাহ যোগাতে শত শত মানুষ রাস্তার পাশে দাঁড়িয়ে উৎসাহ যোগাচ্ছে।

নান্দাইল পাইলট সরকারি বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক আবদুল খালেক জানান, স্কুলের শিার্থীরা চাইছিলো এমন কিছু করার যেন বিশ্বের বুকে বাংলাদেশকে নতুন ভাবে তুলে ধরা যায়। সেজন্য শিার্থীরা চার কি.মি. বৈশাখী আলপনা একে বিশ্ব রেকর্ড গড়ার উদ্যোগ নিয়েছে।

সকাল ৬টা থেকে ২৫ জনের এক একটি দলে ৪০টি গ্রুপে একহাজার ছাত্রী নেমে পড়েছে রেকর্ড গড়ার এ স্বপ্ন পূরণের লড়াইয়ে। তাদের সহযোগিতায় পুরো বিদ্যালয়েরে আরো নয় শত ছাত্রী কাজ করে যাছে। এক কথায় বলতে পারেন আমার বিদ্যালয়ের এক হাজার ৯০০ ছাত্রীই জড়িত হয়েছে। এদের কেউবা আলপনা আঁকার চক নিয়ে, কেউবা তুলি নিয়ে, কেউবা রং নিয়ে, রংয়ের বালতি হাতে নিয়ে, খাবার পানি বা খাবার স্যালাইন হাতে নিয়ে সহযোগিতার জন্য রাস্তায় কাজ করছে। এ কাজে রেইনবো পেইন্টসের সহযোগিতার জন্য তাদের কাছে কৃতজ্ঞ। একই সাথে স্থানীয় সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আবেদিন খান তুহিন, নান্দাইল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. হাফিজুর রহমানসহ পুলিশ প্রশাসন, সাংবাদিক, সুধীজন ও অভিভাবকদের সহযোগিতা না পেলে এ সাহস পেতাম না।

Comments

comments

Powered by Facebook Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *