মঙ্গলবার, জুলাই ১৭

“জাতি তোর নিস্তার নাই” শারমিন আক্তার ইতি

জাতি তোর নিস্তার নাই
“শারমিন আক্তার ইতি”

বাঙ্গালীর ছাত্রজনতা একদিন সম্মলিত কন্ঠে গর্জে উঠেছিলো ৫২তে, কন্ঠে তুলেছে প্রতিবাদের ঝড়, রক্তে তুলেছে সত্যের স্লোগান, আত্বার বলে বলিয়ান হয়ে ঢেলে দিয়েছে তাজা বুকের টকটকে লাল রক্তের স্রোত, ছিনিয়ে এনেছে জয়, আজ আমরা সেই জয়ের পরাজিত সৈনিক। একদিন আমরা যেই প্রতিবাদ থেকে চেতনা পেয়েছি, আজ সেই চেতনাকেই পায়ে দলিয়ে প্রতিবাদির বুকে গুলি ছুড়ে নিজেকে বর্বরদের খাতায় লিপিবদ্ধ করে নিলাম। আজও জেগে উঠেছে ছাত্রজনতা নেমেছে রাজপথে, তুলেছে স্লোগান করছে নিজের অস্তিত্ব রক্ষার দাবী,

সেই দাবীর বুকে চলছে গুলি, মেধার বুকে মারছে লাথি, সত্যের থেকে মুখ ফিরিয়ে
আমরা মিথ্যে নিয়েই মাতি।

কেন নামলি তোরা বলি হওয়ার আশংকা জেনেও?
তোরা কি ভেবেছিস?
কোটা প্রথার সংস্কার হলেই তোদের মেধাকে যথাযথ মূল্যয়ন করা হবে? মোটেও না তবে তোরা বোকাই রয়ে গেলি, কোটা প্রথা যে বৈষম্য সৃষ্টি করেছে সেটা সত্যিই দুঃখজনক, কিন্তু এর সংস্কারেও কি আমরা আমাদের যথেষ্ট প্রাপ্রোটা পাবো? কি করে পাবো, চাকরীর বাজারে যে চড়া দামে চলছে সার্টিফিকেটের মূল্যয়ন, সার্টিফিকেট যাই হোক মেধাতে যতদূরই যাও ডিমান্ড কিন্তু বেড়ে যাবে দ্বিগুন হারে, কোটা না হয় সংস্কার হলো দ্বিগুন হারের ডিমান্ডের দায়ে মেধা তখন নুইয়ে পড়বে মিথ্যের কাছে, সত্যের বলি দিয়ে মিথ্যের পথিক হয়ে নিজের অস্তিত্ব খুজে পেলেও সেই দায়িত্ব ব্যবহার করা হবে আজকের দায়িত্বজ্ঞানহীন দায়িত্বপ্রাপ্তদের মতই, তবে কি হবে এই কোটা সংস্কারে?

বাঙালি কি সত্যিই নিস্তার পাবে?
নানা, পাবেনা!!
তাই বলি বাঙালি তোর নিস্তার নাই এক জায়গা থেকে অন্য জায়গায় যতই প্রতিবাদ করো যতই রক্ত ঢেলে দাও, যতই মায়ের বুক খালি করো যতই স্বপ্নের পথে সবাইকে আহবান করো, কিন্তু আসলে কি তুমি পাবে পুর্ণ স্বাধীনতার প্রকৃত স্বাদ?
যে যত মধুর বুলিই ছড়াক না কেন, আমরা প্রকৃতপক্ষে পরাধীনতার শৃঙ্খলে আবদ্ধ স্বাধীন জাতিই বটে।

প্রতিবন্ধী কোটা ঠিক রেখে অন্যান্য কোটার সংস্কারের পক্ষে আমিও চাই কিন্তু তাতে কি সত্যিই আমরা উপকৃত হতে পারবো? বাকিটা স্রষ্টা যা দেখান সেই অপেক্ষায়…।

সংস্কার যতই হোকনা কোটা
মেধার দামে পাবি লোটা,
নিস্তার তোর নেইরে জাতি
বৃথাই যেন মাতামাতি
দিচ্ছিস যত রক্ত প্রানের
রাজপথেতে আহবানের
আমিও চাই সফল হবে
ইতিহাসের পাতায় রবে।

তারিখ- ১০-০৪-১৮ইং

Comments

comments

Powered by Facebook Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *