সোমবার, মে ২১

তারেক রহমান” যোগ্য বলেই আমরা তাকে নির্বাচিত করেছি” আপনি বলার কে?

সিএন নিউজ২৪.কম, অনলাইন ডেস্কঃ
আমাদের নেতা (তারেক রহমান) আমরা নির্বাচিত করেছি। যোগ্য বলেই আমরা তাকে নির্বাচিত করেছি। আপনি বলার কে? প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যের জবাবে বললেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।
বিএনপির সাবেক সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক নাসির উদ্দিন আহম্মেদ পিন্টুর তৃতীয় মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে বুধবার এক স্মরণ সভায় বিএনপি মহাসচিব এ মন্তব্য করেন।
বিএনপি মহাসচিব বলেন, তার দলের নেতাকে নিয়ে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামীলীগ সভানেত্রী শেখ হাসিনার বক্তব্য গ্রহণযোগ্য নয়।

এর আগে বুধবার বিকেল ৪টায় প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকের এক প্রশ্নের জবাবে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিএনপি রাজনৈতিকভাবে দেউলিয়া হয়ে গেছে, তাই সাজাপ্রাপ্ত তারেককে চেয়ারম্যান করেছে।

এদিকে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানকে দেশে ফিরিয়ে আনতে ব্রিটিশ সরকারের সঙ্গে আলোচনা চলছে বলে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যের সমালোচনা করে মির্জা ফখরুল বলেন, এই ভয় আমাদের দেখাচ্ছেন কেন? যখন দেশে ফিরে আসতে হয় তখন তিনি আসবেন। তারেক রহমান যেদিন দেশে ফিরে আসবেন সেদিন আপনারা দেখবেন তার জনপ্রিয়তা কত এবং মানুষ তাকে কতটা ভালোবাসে। সেদিন দেশের কোটি কোটি মানুষ তাকে বরণ করার জন্য এয়ারপোর্টে হাজির হবে।

তিনি বলেন, আপনারা সব সাজাপ্রাপ্ত লোকদের নিয়ে মন্ত্রিসভায় বসিয়ে রেখেছেন। আপনাদের মামলাগুলো নিজেরা তুলে নিয়েছেন। একটাও রাখেননি।

তারেক রহমানের বিরুদ্ধে সব মামলা ভিত্তিহীন দাবি করে ফখরুল বলেন, তারেক রহমান সাজাপ্রাপ্ত কোন মামলায়? যে মামলায় তিনি খালাস পেয়েছিলেন। তাকে খালাস দেবার অপরাধে ওই বিচারককে দেশ ছেড়ে পালিয়ে যেতে হয়েছে, টু সেইভ হিজ লাইফ। বলা হলো উনার হাত নাকি অনেক লম্বা হয়ে গেছে। দেশ থেকে চলে যাওয়ার পর এখন দুর্নীতির মামলা দেয়া হচ্ছে।
অক্টোবরে সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা প্রসঙ্গে মির্জা ফখরুল বলেন, জাতি নির্বাচনের জন্য প্রস্তুত থাকলেই তফসিল ঘোষণা করতে হয়। আপনারা ভয়াবহ রাজনৈতিক সংকট তৈরি করেছেন। এই দেশের মানুষ আপনাদের অধীনে নির্বাচন বিশ্বাস করে না। আপনারা সরকারে থাকবেন আর নির্বাচন সুষ্ঠু হবে তা এ দেশের মানুষ বিশ্বাস করে না।

Comments

comments

Powered by Facebook Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *