মঙ্গলবার, জুলাই ১৭

নাঙ্গলকোটে ধান চাষে হতাশ হাজারো কৃষক



জাকির হোসেন লিটনঃ-

কুমিল্লার নাঙ্গলকোট উপজেলায় মোট জমির পরিমাণ ২৩.৬৪৩ হেক্টর, এর মধ্যে ৩৪.২০৭ হেক্টর জমিতে ফসল চাষ করা হয়।
ঐ ফসলি জমির বিভিন্ন অঞ্চলে ধান চাষে ক্ষতির সম্ভাবনা দেখছেন হাজারো কৃষক। কয়েকজন কৃষকের সাথে আলাপ কালে জানা যায় গত মৌসমে ভারতী বাংলা জাতের ধান চাষে লাভবান হওয়ায় এবারও ঐ জাতের ধান রোপন করে এই অঞ্চলের কৃষকেরা।কিন্তু এবার দেখা গেল ভিন্ন চিত্র।
তাদের মতে প্রায় সব ধান এবার রোগে আক্রান্ত হয়েছে, কিন্তু সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত হয়েছে ভারতী বাংলা জাতের ধান।বিভিন্ন ধরনের ঔষধ ব্যবহার করেও এর কোনো ভালো ফল পাওয়া যাচ্ছে না। ধানের এরকম অবস্থা এর আগে আর কখনো দেখা যায়নি। এই প্রথম ধানের এই রোগ দেখা গেছে। ধান রোপন করেছে সবে মাত্র ৪০-৫০ দিন হবে, কিন্তু দেখে মনে হয় যেন মাঠ ভরা পাকা ধান, নজির বিহীন এমন চিত্রে দু-চোখে পানি চলে আসে কৃষকদের, কৃষকেরা জানান আমরা এখন প্রায় লাখ লাখ টাকা লোকসানের মুখে। আমরা এই ধান দিয়ে সারা বছর জীবিকা নির্বাহ করি, তাই এখন আমরা না খেয়ে থাকতে হবে।

এ বিষয়ে নাঙ্গলকোট উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোস্তাফিজুর রহমান সিএন নিউজ২৪ ডটকম’ কে জানায় ধানের এই অবস্থা ভাইরাস জনিত কারনে, এই রোগের কোন ঔষধ বা কীটনাশক নেই। সংক্রামক এই রোগ আবহাওয়া জনিত কারনে হয়ে থাকে, তিনি বলেন কৃষকেরা যদি আক্রমন কৃত ধান গাছ উপড়ে পেলে দেয় তাহলে অন্য গাছ রক্ষা পেতে পারে।
তিনি বলেন আমি গত কয়েকদিন যাবৎ মাঠ পরিদর্শন করে দেখলাম ধান গাছ গুলো প্রায় ৮০ ভাগ ভাইরাস রোগে আক্রান্ত হয়েছে, তার মধ্যে ভারতী বাংলা জাতের ধান গাছ বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে, অন্য জাতের ধান গাছ কম ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বলে জানান তিনি।

Comments

comments

Powered by Facebook Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *