শুক্রবার, মে ২৫

নড়াইলে গরুর হাটে টোল আদায় নিয়ে সংঘর্ষ; ৩৫০ জনকে আসামী করে মামলা

নিজস্ব প্রতিনিধি, এসবি মিনহাজুল ইসলামঃ

নড়াইলের পহরডাঙ্গা গরুর হাটের টোল আদায়কে কেন্দ্র করে ১৫ এপ্রিলের দু’পক্ষের সংঘর্ষ ও স্থানীয় আওয়ামী লীগ অফিস ভাংচুরে ঘটনায় সাড়ে ৩’শ লোককে আসামী করে দুটি মামলা দায়ের হয়েছে। মঙ্গলবার (১৭ এপ্রিল) গভীর রাতে নড়াইলের নড়াগাতি থানায় দুই পক্ষের নেতারা মামলা দুটি দায়ের করেছেন। মঙ্গলবার দুপুরেও পহরডাঙ্গা গ্রামে আরও একটি বাড়ি ভাংচুর ও একজনকে মারপিটের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এলাকায় থমথমে অবস্থা বিরাজ করছে। ঘটনা স্থলে পুলিশের টহল জোরদার করা হয়েছে।

পুলিশ জানায়, স্থানীয় বিরোধ মেটাতে গত কয়েক বছর যাবৎ নড়াইল জেলার সর্ববৃহৎ ওই গরুর হাটটি নড়াইলের পহরডাঙ্গা মাদ্রাসার নামে ইজারা নিয়ে স্থানীয়রা ভাগবাটোয়ারা করে টোল আদায় করে আসছিল মফিজ শেখ গ্রুপ ও সেলিম শিকদার গ্রুপ। কিন্তু চলতি বছরে মাদ্রাসার পরিবর্তে হাটের ইজারা পেয়েছেন এক জন কম্পিউটার অপারেটর হীরা মিয়া। পহরডাঙ্গা গ্রাম বা এলাকার আশপাশের কেউ হাটটির ইজারা না পাননি। অপরদিকে ইজারাদার বছরের প্রথম হাটে সেলিম গ্রুপকে একক ভাবে টোল আদায় করতে দায়িত্ব দিলে টোল আদায় নিয়ে বিবাদমান দুটি গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষ বাধে।ওই ঘটনায় সেলিম গ্রুপের সেলিম নিজে বাদি হয়ে ১৪০ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত নামা ২০/৩০ জনকে আসামী করে। অপরদিকে মফিজ শেখ গ্রুপের রহমত শিকদার বাদি হয়ে ১৫০ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত নামা ২০/৩০ জনকে আসামী করে মামলা দায়ের করেন।পহরডঙ্গা ও সরসপুর গ্রাম এখন পুলিশের অভিযানে পুরুষ শুন্য অবস্থায় আছে।

এ প্রসঙ্গে মফিজ শেখ অভিযোগ করে, ‘মঙ্গলবার দুপুরে সেলিম গ্রুপের লোকজন তার সমর্থক পহরডাঙ্গা গ্রামের তৈয়ব দাড়িয়ার বাড়িতে হামলা চালিয়ে তার পুত্র আলমাছকে (২২) মারপিট করা সহ বাড়ি ভাংচুর করেছে। আহতকে স্থানীয় ভাবে চিকিৎসা দেয়া হয়েছে।

নড়াইলের নড়াগাতি থানার অফিসার ইনচাজর্ (ওসি) জানায়,‘নড়াগাতী থানায় দুটি মামলা দায়ের হয়েছে। কাউকে আটক করা হয়নি। পরিস্থিতি শান্ত রয়েছে। আসামীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

Comments

comments

Powered by Facebook Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *