বৃহস্পতিবার, অক্টোবর ১৮

পশ্চিমবঙ্গে উদ্বোধন হওয়া বাংলাদেশ ভবনে কি কি আছে?

সিএন নিউজ ডেস্ক :: পাকিস্তান আমলে তৎকালীন পূর্ব পাকিস্তানে নিষিদ্ধ করা হয়েছিল রবীন্দ্রনাথকে৷ তার প্রতিবাদে সরব হয়েছিলেন পদ্মাপারের বাঙালিরা৷ রাজপথে নেমে পাক সেনা-পুলিশের বাধা পার করে প্রবল প্রতিবাদ সংঘটিত হয়েছিল৷ এই সংক্রান্ত বিশেষ বিভাগটি বিশ্বভারতীর বাংলাদেশ ভবনের বিশেষ আকর্ষণ বলেই মনে করা হচ্ছে৷
রবীন্দ্রনাথ যেমন ভারতের তেমনই বাংলাদেশের৷ বিলুপ্ত পূর্ব বাংলায় কবির অজস্র স্মৃতি ছড়িয়ে৷ সেইসব স্মৃতি ও বিশেষ তথ্য-গবেষণাপত্র দিয়ে সাজানো হয়েছে এই ভবন৷ এমনই আশ্চর্যজনক আরও অনেক বিভাগ নিয়েই যাত্রা শুরু করল বিশ্বভারতীর বাংলাদেশ ভবন৷
শুক্রবার এই ভবনের উদ্বোধন করেন নরেন্দ্র মোদী ও শেখ হাসিনা৷ দুই প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে অনুষ্ঠানে ছিলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ ভবনটি তৈরির জন্য অর্থ দিয়েছে বাংলাদেশ সরকার৷
কী আছে সেই ভবনে এই নিয়ে বিবিসির বিস্তারিত প্রতিবেদন বলা হয়েছে, অত্যাধুনিক দোতলা এই ভবনটিতে আছে একটি মিলনায়তন, জাদুঘর এবং গ্রন্থাগার। এর মধ্যে অনেক বইই রবীন্দ্রচর্চা এবং রবীন্দ্র গবেষণা ভিত্তিক, যা ভারতে সহজলভ্য নয়।
এক নজরে বাংলাদেশ ভবনের নজরকাড়া সামগ্রী:
জাদুঘরটি চালু হচ্ছে প্রায় ৪০০০ বর্গফুট এলাকা নিয়ে। পরে এটিকে আরও বড় করার পরিকল্পনা করা হয়েছে। ভবনের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ অংশ হল গ্রন্থাগার৷ সেই গ্রন্থাগারের জন্য বাংলাদেশ থেকে নিয়ে আসা হয়েছে প্রায় ৩৫০০ বই। রয়েছে অনেকগুলি ইন্টার অ্যাকটিভ, টাচ স্ক্রিন কিয়স্ক। ছাপানো বই ছাড়াও ডিজিটাল বইও পড়তে পারবেন পাঠকরা।
বাংলাদেশের প্রত্ন সামগ্রী ভবনটির অন্যতম আকর্ষণ৷ প্রত্নবিদ্যা ও ইতিহাসের গবেষণাকারীদের এই বিভাগটি বিশেষ কাজে লাগবে বলেই মনে করা হচ্ছে৷ এখানে আছে আড়াই হাজার বছর পুরনো সভ্যতার নিদর্শন৷ এছাড়া আছে ৬ষ্ঠ-৭ম শতকের পোড়ামাটির কাজ, ১৬শ শতকের নক্সাখচিত ইট প্রভৃতি। বাংলাদেশের উয়ারি বটেশ্বরে মিলেছে এই প্রত্নসামগ্রী৷ পাহাড়পুর, মহাস্থানগড়ের নানা নিদর্শন, দেবদেবীদের মূর্তি। কোনটা পোড়ামাটির, কোনটি ধাতুর তৈরি৷ এমনই জানিয়েছে বিবিসি৷ এছাড়াও থাকছে সুলতানি এবং ব্রিটিশ শাসনের সময় নিয়ে বিভাগ৷
ভারত স্বাধীন ও পাকিস্তান গঠিত হওয়ার পর পূর্ব পাকিস্তানের সময়টি নিয়েও থাকছে রকমারি তথ্য ও ছবির সংগ্রহ৷ এর সঙ্গেই থাকছে ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধ৷ পাকিস্তান থেকে ছিন্ন হয়ে বাংলাদেশ তৈরি হওয়ার রক্তাক্ত স্বাধীনতার লড়াই ও ভারতের অবদান নিয়ে বিশেষ গ্যালারি৷
এছাড়াও বাংলাদেশ ভবনের অন্যতম আকর্ষণ রবীন্দ্রনাথকে তাদের সংগ্রহশালা৷ রবীন্দ্রনাথ নিয়ে রয়েছে সম্পূর্ণ পৃথক একটি বিভাগ। পূর্ববঙ্গের সাজাদপুর, শিলাইদহ, পতিসরের কাছারিবাড়ির ছবি, সেখানে কবির ব্যবহৃত নানা সামগ্রী দিয়ে সাজানো রয়েছে জাদুঘরের এই অংশটি। আছে রয়েছে ঢাকার বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘর থেকে আনা বেশ কিছু মুদ্রা।
অন্যতম আকর্ষণ ভাষা আন্দোলন: এই বিভাগ শুরু হয়েছে ১৯৫২ সালের ভাষা আন্দোলনকে কেন্দ্র করে।বিভিন্ন ছবিতে ধরা রয়েছে ১৯৫২-র ২১শে ফেব্রুয়ারি সকালে পাকিস্তানী সরকারের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে যে ঐতিহাসিক মিছিল হয়েছিল, সেখানে গুলি চালানোর ঘটনা৷ আর আছে ভাষা শহিদদের প্রসঙ্গ।

Comments

comments

Powered by Facebook Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *