বৃহস্পতিবার, জুলাই ১৯

বাহ্যিকভাবে বাঁচানো পৃথিবীর দায়িত্ব,ভেতরগতভাবে চলে যাওয়ার অধিকার প্রাণের

মেহেদী হাসান জাহিদ :
মৃত্যু শব্দগঠনটাই হল সমর্পণ করা, চোখকে কিছু না দেখতে বলা, হাতকে শক্তিচ্যুত হতে বাধ্য করা, হৃদপিন্ড নির্জীব হওয়া আর সর্বকথা হল উড়তে পাড়া কিন্তু দেহ নয় আত্তা। আমার তোমার দেহের স্নায়ুজাল দেহকে ভালবাসতে বাধ্য করে কষ্টটা নিজের বলে, আমি তুমি দেখেছি বলবান বলহীন হতে আমরা তেমনটাও হতে পারি নাই তারা আরও শক্তিধর ছিল কিন্তু নিঃশ্বাস চেয়েছিল পায়নি মৃত্যুর সময়, যারা ভয়কে জয় করেছিল তারাও ভয় পেয়েছিল যখন ঝাপসা চোখের সামনে অস্তিত্ত ছিল না নিজের , অজানা মৃত্যু কষ্ট নিয়ে ভোগায় না আর জানা হলে মৃত্যুটা অপ্রত্যাশী হয়ে যায়।

আমি জানি ছাড়তেই হবে আমাকে তোমাকেও তবে রসদ কাল থেকে অর্জন করব এভাবেই নিজের আয়ু বিগত হয়ে গেল সময় পাওয়া হল না । যদি নিজের সময় জানা থাকত তবে যার জন্যে এসেছি তাই করতাম পরে ফলভোগী হয়ে যেতাম কিন্তু নিয়মটা এমন নয় অজ্ঞাত সময়ের ফলে কাজের প্রতি অনিহার হয়েছে। মানুষের জন্ম থেকে মৃত্যুকাল পর্যন্ত বিচিত্র সব অভিজ্ঞতার মুখ দেখে যা অজানা থাকে তা নিজেকে হারানো যা বুঝে কিন্তু অন্যকে বুঝানোর সময় পায় না। জীবনপ্রবাহে কেউ মৃত্যু সামনে দেখলে তার মত ভীতু কেউ থাকে না যদি তার অতীত ভাল এর বিবেচনায় খারাপ হয় আর দুই দিনের পৃথিবীর মায়া ছাড়ার ফল চিন্তাও করতে পারে না চিরন্তন সত্যতা আফসোস এর জন্ম দেয় মনে , মানুষ তার শেষ উৎকৃষ্ট করতে চায়, মৃত্যু আমরা জানি কিভাবে হয় সকলেই একবার দেখে সর্বশেষ অভিজ্ঞতা কিন্তু অনেকের বাহ্যিক পৃথিবী আগেই জানান দিয়ে দেয় সময় শেষ প্রায়। তখন তার ভয়টা বলে বুঝানোর নয়, কষ্টটা নেওয়ার জন্যে প্রস্তুত হতে পারে না সে, তখন ধর্মের প্রতি এতও মনোযোগী হয় যে সবসময় এমন হতে পারলে উজ্জল দৃষ্টান্ত হতে পারত ক্ষমা প্রার্থী থাকে সকলের , সবাইকে ছাড়বার আবেগে অজান্তেই কান্না করে, আফসোস এর বজ্রপাত হয় মনে, প্রতি শ্বাসকর্ম মুল্যবান হয় অনেক।

সাক্ষাতকার দরকার সকলেরই যার দুনিয়ার মেয়াদকাল শেষ বলে ঘোষিত আছে আর বুঝা তোমার অবস্থার বর্তমানন পাওয়া। মৃত্যুভয় মানু্ষকে সঠিক পথে নিয়ে আসে অজানা লোমহর্ষক সেই অনুভুতির জন্ম দেয় মনে, ভাল মন্দ বিচারে বিচারক হয় নিজ মস্তক যাই হল প্রধান বিচারক।

কারন বিশ্বাসের সেই পরকাল কারও মনে এখনও প্রকৃতি বর্ননা দেয় নি। সব কথার শেষ কথা “বাহ্যিকভাবে বাঁচানো হল পৃথিবীর দায়িত্ব ভেতরগতভাবে চলে যাওয়ার অধিকার হল প্রানের।”

Comments

comments

Powered by Facebook Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *