বৃহস্পতিবার, জুলাই ১৯

সমুদ্রের নীচে বাংলো, এক রাতের খরচ জানেন?

সিএন নিউজ পর্যটন ডেস্কঃ–
কখনও ভেবেছেন সমুদ্রের গভীরে গিয়ে এক রাত কাটিয়ে আসবেন। প্রবাল প্রাচীরে ঘেরা বাংলোর বারান্দায় বসে অতল জলরাশি দেখতে দেখতে চা খাবেন। যদি স্বপ্নেই এই সব দেখে থাকেন, তা হলে আপনার স্বপ্ন বাস্তব হতে চলেছে। সত্যি নাকি! কিভাবে?

অ্যাডভেঞ্চার যাদের ভালো লাগে? তাদের জন্যই মলদ্বীপের রঙ্গোলি আইল্যান্ডে সমুদ্রের গভীরে এক আশ্চর্য বাংলো বানাতে চলেছে কনরাড মলদ্বীপ। পানির নীচে বাংলোটি ঘিরে থাকবে প্রবাল প্রাচীর। অতল পানির আহ্বান শুনতে শুনতে সমুদ্রের গভীরে এক অজানা জগতের স্বাদ পাবেন পর্যটকেরা।

সমুদ্রের ১৬ ফুট নীচে ওই বাংলোর নাম হবে ‘মুরাকা’। স্থানীয় ধিভেহি ভাষায় যার অর্থ প্রবাল। বাংলোর ঘরে বসেই রঙবে-রঙের প্রবাল প্রাচীরের শোভা নিতে পারবেন পর্যটকেরা। বেডরুমে বসেই দেখবেন আপনার চারপাশে খেলা করে বেড়াচ্ছে মাছ ও অক্টোপাসেরা। ভাগ্যে থাকলে দু’ একটা খুনে হাঙরও যে চোখে পড়বে না তা নয়।

চলতি বছর নভেম্বরেই পর্যটকদের জন্য খুলে দেওয়া হবে মুরাকা। ঝাঁ চকচকে বাংলোটির অন্দরসজ্জার দায়িত্বে রয়েছেন আহমেদ সালিম। পর্যটকদের মনোরঞ্জনের জন্য সুন্দর করে সাজানো হচ্ছে প্রতিটি ঘর। থাকবে বিলাস-ব্যসনের এলাহি আয়োজন। খাবারও পাওয়া যাবে মনের মতোই।

গোটা বাংলোটিকে ভাগ করা হয়েছে দু’টি ভাগে। অনেকটা দোতলা বাড়ির মতো। একেবারে নীচের তলাটি সমুদ্রের ১৬.৪ ফুট গভীরে। সেখানে প্রতিটি সুইটে থাকছে বিশাল বড় বেডরুম এবং সুসজ্জিত বাথরুম। নীচের তলা থেকে ঘোরানো সিঁড়ি উঠে এসেছে পানির উপরে। সেখানেও রয়েছে থাকার ব্যবস্থা। অর্থাৎ চাইলেই পানির নীচের ঘরে বসে প্রবাল প্রাচীর দেখতে পারেন। অথবা উপরে উঠে এসে সূর্যাস্তের মজা নিতে পারেন।

তাছাড়াও বাংলোটিতে রয়েছে জিম, বার, সান ডেক, স্পা, পর্যটকদের জন্য আলাদা লিভিং রুম। আহমেদ সালিম জানিয়েছেন, পর্যটকদের নিরাপত্তার দিকটাও মাথায় রাখা হয়েছে।

তবে, লোভনীয় এই বাংলোর ছবি দেখে মলদ্বীপ যাওয়ার কথা ভাবলে আগে জেনে নিন এখানে থাকার খরচ কত। মাছ ও প্রবাল প্রাচীরের শোভা দেখতে দেখতে মুরাকায় এক রাত থাকার খরচ ৫০ হাজার ডলার।

Comments

comments

Powered by Facebook Comments

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *