শুক্রবার, আগস্ট ১৭

জলবায়ু

শতাব্দীর দীর্ঘতম চন্দ্রগ্রহণ শুক্রবার, দেখা যাবে বাংলাদেশ থেকেও

শতাব্দীর দীর্ঘতম চন্দ্রগ্রহণ শুক্রবার, দেখা যাবে বাংলাদেশ থেকেও

সিএন নিউজ অনলাইন ডেস্কঃ- শতাব্দীর দীর্ঘতম চন্দ্রগ্রহণ দেখা যাবে শুক্রবার মধ্যরাতে। এদিন প্রায় পাঁচ ঘণ্টা ধরে ছায়াচ্ছন্ন থাকবে চাঁদ। প্রায় পৌনে দুই ঘণ্টা (১ ঘণ্টা ৪৩ মিনিট) ধরে চাঁদ পুরোপুরি ঢেকে যাবে পৃথিবীর ছায়ায়। পূর্ণ চন্দ্রগ্রহণের আগে ও পরে আরও দুইবার হবে আংশিক চন্দ্রগ্রহণ। পূর্ণ চন্দ্রগ্রহণ আর আগে-পরের দু’টি আংশিক চন্দ্রগ্রহণ মিলিয়ে প্রায় পাঁচ ঘণ্টা আলো-আঁধারিতে ঢাকা থাকবে চাঁদ। নরওয়েভিত্তিক ওয়েবসাইট টাইম অ্যান্ড ডেট ডটকম জানাচ্ছে, শুক্রবার বাংলাদেশ সময় রাত ১১টা ১৪ মিনিটে শুরু হবে আংশিক চন্দ্রগ্রহণ। চলবে রাত ১টা ৩০ মিনিট পর্যন্ত। তার পর শুরু হবে শতাব্দীর দীর্ঘতম পূর্ণগ্রাস চন্দ্রগ্রহণ। তা শেষ হবে রাত ৩টা ১৩ মিনিটে। এরপর আবার ৩টা ১৩ মিনিটে ফের শুরু হবে আংশিক গ্রাস, যা শেষ হবে রাত ৪টা ১৯ মিনিটে। শতাব্দীর এই দীর্ঘতম চন্দ্রগ্রহণ ঢাকাসহ সারা বাংলাদেশ থেকে দেখা যাবে। এছা
জলবায়ু পরিবর্তনে ঝুঁকির মুখে দেশের ১৩ কোটি মানুষ

জলবায়ু পরিবর্তনে ঝুঁকির মুখে দেশের ১৩ কোটি মানুষ

সিএন নিউজ অনলাইন ডেস্কঃ-- জলবায়ু পরিবর্তনের ধারা অব্যাহত থাকলে ক্ষতির মুখে পড়বে দক্ষিণ এশিয়ার ছয় দেশের ৮০ কোটি মানুষ। যার মধ্যে রয়েছে বাংলাদেশের ১৩ কোটি ৩৪ লাখ মানুষ। এক গবেষণায় বিশ্ব ব্যাংক জানিয়েছে, পৃথিবীর জলবায়ু যেভাবে বদলে যাচ্ছে, সেই ধারা অব্যাহত থাকলে এবং দ্রুত ক্ষতি কমিয়ে আনার পদক্ষেপ নেওয়া না হলে ২০৫০ সাল নাগাদ বাংলাদেশে ঝুঁকির মধ্যে থাকা এলাকাগুলোতে মাথাপিছু জিডিপি এখনকার তুলনায় ১৪.৪ শতাংশ কমে যাবে। জিডিপিতে ওই ক্ষতির আর্থিক পরিমাণ হবে ১৭১ বিলিয়ন ডলারের মত। দক্ষিণ এশিয়ার মানুষের জীবনযাত্রায় জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব বুঝতে এ ধরনের প্রতিবেদন এটাই প্রথম। বৈশ্বিক উষ্ণতা বৃদ্ধি এবং বৃষ্টিপাতের ধরনে পরিবর্তনের প্রভাব এই গবেষণায় আর্থিক মূল্যে পরিমাপ করার চেষ্টা করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার প্রকাশিত ‘সাউথ এশিয়াস হটস্পটস’ শীর্ষক এই প্রতিবেদন বলছে, গ্রিন হাউজ গ্যাস নিঃসরণের পরিমাণ কম
৮ জুন থেকে সারাদেশে বাড়বে বৃষ্টিপাত

৮ জুন থেকে সারাদেশে বাড়বে বৃষ্টিপাত

সিএন নিউজ জলবায়ু ডেস্কঃ-- আগামী ৮ জুন থেকে সারাদেশে বৃষ্টিপাতের প্রবণতা আরও বাড়তে পারে। মৌসুমি বায়ুর প্রভাবে ঢাকাসহ দেশের দক্ষিণাঞ্চলে মঙ্গলবার থেমে থেমে বৃষ্টি হচ্ছে। এ অবস্থা আরও ২-৩ দিন অব্যাহত থাকতে পারে। আবহাওয়াবিদ নিঝুম রোকেয়া আহম্মেদ মঙ্গলবার বাসসকে এ তথ্য জানান। তিনি বলেন, দেশের মধ্যাঞ্চল ও দক্ষিণাঞ্চল বিশেষ করে ঢাকা, ফেনী, কুমিল্লা, মুন্সীগঞ্জ, মাদারীপুর, শরীয়তপুরের অনেক জায়গায় বৃষ্টি ও ছোট আকারের কালবৈশাখী ঝড় হতে পারে। সেই সঙ্গে বিজলী চমকানোসহ বজ্রপাতের সম্ভাবনাও রয়েছে। মঙ্গলবার সকালে ঢাকা, চট্টগ্রাম, বরিশাল ও সিলেট বিভাগের অনেক জায়গায় মাঝারী থেকে ভারী বৃষ্টি হয়েছে। এ সময় রংপুর ও রাজশাহী বিভাগে বৃষ্টিপাতের প্রবণতা কম থাকলেও ২-৩ দিনের মধ্যে তা বাড়তে পারে বলেও জানান এই আবহাওয়াবিদ।
সারাদেশে থেমে থেমে বৃষ্টি, কালবৈশাখীর হুঁশিয়ারি

সারাদেশে থেমে থেমে বৃষ্টি, কালবৈশাখীর হুঁশিয়ারি

সিএন নিউজ ডেস্কঃ-- রমজানের প্রথম দিন (১৮ মে, শুক্রবার) সকাল থেকে ঢাকাসহ দেশের বিভিন্ন এলাকায় থেমে থেমে বৃষ্টি হচ্ছে। আবহাওয়া অফিসের তথ্য মতে, সকাল ৯টা পর্যন্ত ঢাকায় ২.৪ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। একই সঙ্গে গ্রীষ্মের এ মাঝামাঝি সময়ে কালবৈশাখী বয়ে যেতে পারে বলেও হুঁশিয়ারি করা হয়েছে। আবাহাওয়া অধিদফরত সূত্রে জানা গেছে, গত ২৪ ঘণ্টায় কুতুবদিয়ায় ৬৫ মিলিমিটার, নিকলীতে ৬১, চট্টগ্রামে ৪০, সিলেটের শ্রীমঙ্গলে ২২, ময়মনসিংহে ৯ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। এছাড়া ঢাকাসহ টাঙ্গাইল, ফরিদপুর, কুষ্টিয়া, মাদারীপুর, যশোর, খুলনা, পাবনা, ময়মনসিংহ, সিলেট, চট্টগ্রাম, কক্সবাজার ও কুমিল্লা অঞ্চলের ওপর দিয়ে অস্থায়ীভাবে ঘণ্টায় ৬০ থেকে ৮০ কিলোমিটার বেগে দমকা বাতাস অথবা ঝড়ো হাওয়া বয়ে যাচ্ছে। এসব এলাকার বন্দরসমূহে ২ নম্বর সতর্কতা সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে। আবহাওয়াবিদ রুহুল কুদ্দুস জানান, চলতি মে মাসে ঢাকাসহ দেশের
খুলনায় ভোটে ব্যাঘাত ঘটাতে পারে প্রকৃতি

খুলনায় ভোটে ব্যাঘাত ঘটাতে পারে প্রকৃতি

সিএন নিউজ খুলনা প্রতিনিধিঃ-- গত বছরের ধারাবাহিকতায় এবারের গ্রীষ্মও বৃষ্টিবহুল। সেই সঙ্গে বজ্রঝড় আর কালবৈশাখী বিঘ্ন ঘটাচ্ছে স্বাভাবিক জনজীবনের। আবহাওয়ার পূর্বাভাস বলছে, মঙ্গলবার দক্ষিণের অন্যতম প্রধান শহর খুলনায় ভোটে ব্যাঘাত ঘটাতে পারে বৈরী আবহাওয়া। সোমবার থেকে গোটা দক্ষিণাঞ্চল-পশ্চিমাঞ্চলের আবহাওয়া খারাপ হতে পারে বলে জানিয়েছেন আবহাওয়া অধিদপ্তরের একজন আবহাওয়াবিদ। আর এই পরিস্থিতি বেশ কয়েকদিন চলতে পারে। অবশ্য ওই আবহাওয়াবিদ এও জানিয়েছেন, মঙ্গলবার ঝড়, বৃষ্টি হলেও সেটি দিনভর হবে না, গ্রীষ্মের বৃষ্টি বর্ষার মতো ঘণ্টার পর ঘণ্টা স্থায়ী হয় না। তিন সপ্তাহের নির্ঘুম প্রচার শেষে খুলনা এখন ভোটের অপেক্ষা। সিটি করপোরেশন নির্বাচনে মুখোমুখি দুই প্রধান দল আওয়ামী লীগ ও বিএনপি। স্থানীয় সরকার নির্বাচন হলেও মেয়র পদে দুই প্রার্থী আওয়ামী লীগের তালুকদার আবদুল খালেক ও বিএনপির নজরুল ইসলাম মঞ্জুর প্রতিদ্
সিলেট অঞ্চলে ৮ নদীর পানি বিপদসীমার উপরে

সিলেট অঞ্চলে ৮ নদীর পানি বিপদসীমার উপরে

সিএন নিউজ সিলেট প্রতিনিধিঃ-- উজানের ঢল ও বৃষ্টিপাত অব্যাহত থাকায় সিলেট অঞ্চলের আট নদীর পানি ১৩টি পয়েন্টে বিপদসীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে বলে জানিয়েছে পানি উন্নয়ন বোর্ডের বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্র। মঙ্গলবার কেন্দ্রের পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, আগামী ৪৮ ঘণ্টায় সিলেট, মৌলভীবাজার ও হবিগঞ্জে জেলার কিছু স্থানে বিদ্যমান আকস্মিক বন্যা পরিস্থিতির আরও অবনতি হতে পারে। বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্রের রেকর্ড অনুযায়ী, মঙ্গলবার সকাল ৯টায় সুরমা নদীর কানাইঘাট ও সিলেট, কুশিয়ারার অমলশীদ, শেওলা, ফেঞ্চুগঞ্জ ও মারকুলি, মনু নদীর মৌলভীবাজার, খোয়াই নদীর বাল্লা ও হবিগঞ্জ, সুতং নদীর সুতং রেলওয়ে ব্রিজ, কংস নদীর জারিয়াজঞ্জাইল, কালনী নদীর আজমিরিগঞ্জ এবং বাউলাই নদীর খালিয়াজুরি এলাকার পানি বিপদসীমার উপর দিয়ে বইছিল। এর মধ্যে কুশিয়ারা নদীর পানি অমলশিদ পয়েন্টে বিপদসীমার ৮৯ সেন্টিমিটার, শেওলায় ১০৭ স
ভারতের উত্তরাঞ্চলে নিহত ১২৫ , আরো ঝড়ের পূর্বাভাস

ভারতের উত্তরাঞ্চলে নিহত ১২৫ , আরো ঝড়ের পূর্বাভাস

সিএন নিউজ আন্তর্জাতিক প্রতিবেদকঃ-- ভারতের উত্তরাঞ্চলে ধূলিঝড়ে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ১২৫ জন হয়েছে। এর মধ্যে আবহাওয়া অফিসের পূর্বাভাসে আরো ঝড় হতে পারে বলে উল্লেখ করা হয়েছে। ঝড়ো হাওয়া ও বজ্রপাতে বহু গ্রাম তছনছ হয়ে গেছে। ঘরবাড়ির দেয়াল ধসে গেছে। আহত হয়েছেন অনেকে। উত্তর প্রদেশের ত্রাণ কমিশনার কার্যালয়ের এক মুখপাত্র বার্তা সংস্থা এএফপিকে বলেন, গত ২০ বছরে এত মৃত্যুর ঘটনা ঘটল। এই সংখ্যা আরো বাড়বে বলেও আশঙ্কা করছেন কর্মকর্তারা। লোকজনকে সতর্ক থাকতে বলেছে রাজ্য ত্রাণ কমিশনারের কার্যালয়। আজ শুক্রবার ভারতের আবহাওয়া বিভাগের বরাত দিয়ে বিবিসি জানিয়েছে, সপ্তাহান্তে বিস্তৃত আকারে ঝড় হতে পারে। উত্তর প্রদেশ ও রাজস্থানে ঝড়ে বিদ্যুৎ চলে গেছে, গাছপালা উপড়ে গেছে, ঘরবাড়ি ধ্বংস হয়েছে এবং অনেক পশু মারা গেছে। উত্তর প্রদেশের আগ্রা জেলায় সবচেয়ে বেশি ক্ষতি হয়েছে। পার্শ্ববর্তী রাজস্থান রাজ্যের আলওয়ার, ভারতপু
আগামী দুই দিন দেশের কয়েকটি এলাকায় ভারী বর্ষণ অব্যাহত থাকতে পারে

আগামী দুই দিন দেশের কয়েকটি এলাকায় ভারী বর্ষণ অব্যাহত থাকতে পারে

অনলাইন ডেস্ক- বজ্রপাতের ঘনঘটা বৃদ্ধির কারণে আগামী দুই দিন দেশের কয়েকটি এলাকায় ভারী বর্ষণ অব্যাহত থাকতে পারে। আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, আগামীকাল সোমবার ও পরদিন মঙ্গলবারও ঝোড়ো হাওয়া আর ভারী বর্ষণ চলবে। শিলাবৃষ্টিরও আভাস রয়েছে কোথাও কোথাও। আবহাওয়াবিদ মো. বজলুর রশিদ রোববার দুপুরে বাসসকে জানান, রোববার সকাল থেকে দেশের অনেক এলাকায় ভারী বর্ষণ হয়েছে। আগামী দুই দিনও দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে ভারী থেকে অতি ভারী বর্ষণের সম্ভাবনা রয়েছে। মো. বজলুর রশিদ জানান, আজ দেশের সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে ময়মনসিংহে—৬৯ মিলিমিটার। রাজধানী ঢাকায় বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে ৫৫ মিলিমিটার। আবহাওয়া অফিস জানায়, রাজশাহী, রংপুর, দিনাজপুর, পাবনা, বগুড়া, টাঙ্গাইল, ময়মনসিংহ, সিলেট, যশোর, কুষ্টিয়া, ফরিদপুর, মাদারীপুর, খুলনা, বরিশাল, পটুয়াখালী, ঢাকা, কুমিল্লা ও নোয়াখালী অঞ্চলে দমকা অথবা ঝোড়ো হাওয়াসহ ভারী থে
আতঙ্কের নাম বজ্রপাত !

আতঙ্কের নাম বজ্রপাত !

সিএন নিউজ ডেস্ক- বছরের মধ্যে বৈশাখ-জৈষ্ঠ্য মাসে বেড়ে যায় বজ্রপাতের সংখ্যা। বজ্রপাতে হতাহতের সংখ্যাও বাড়ছে। গতকাল রোববার একদিনেই দেশের বিভিন্ন জেলায় বজ্রপাতে মারা গেছেন ১৫ জন। প্রাকৃতিক দুর্যোগে মৃত্যুর পরিসংখ্যানে দেখা যায়, বিশ্বের বজ্রপাতে মুত্যুর এক-চতুর্থাংশ ঘটে বাংলাদেশে। বাংলাদেশ একটি দুর্যোগপ্রবণ দেশ। বন্যা, ঘূর্ণিঝড়, জলোচ্ছ্বাস, ভূমিকম্প, নদীভাঙন, টর্নেডো, অগ্নিকাণ্ড, খরা ইত্যাদি প্রাকৃতিক দুর্যোগের সঙ্গে সম্প্রতিককালে নতুন করে যোগ হয়েছে বজ্রপাত। বজ্রপাতে ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ কমাতে আপাতত সচেতনতামূলক কার্যক্রমের উপর জোর দিচ্ছে সরকার। এ লক্ষ্যে কিছু নির্দেশনাও দিচ্ছে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়। মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব মো. মোহসীন বলেন, ‘বজ্রপাতের সময় বিদ্যুত পরিবাহি যেমন ট্রাক্টর, লোহার লাঙল, বাইসাইকেল থেকে নিরাপদ দূরত্ব বজায় রেখা। বজ্রপাতের সময় খোলা জায়গা,
যে কারণে বাড়ছে বজ্রপাত

যে কারণে বাড়ছে বজ্রপাত

বিশেষ প্রতিনিধি- সাম্প্রতিক সময়ে বিশ্বজুড়ে পরিবেশগত পরিবর্তন একটি গুরুত্বপূর্ণ আলোচ্য বিষয়। বিশেষ করে জলবায়ুগত পরিবর্তনের কারণে প্রাকৃতিক দুর্যোগ যেমন— বন্যা, খরা, সমুদ্রের উচ্চতা বৃদ্ধি, নদী ভাঙন, ঘূর্ণিঝড়, অতিবৃষ্টি, বজ্রপাত ইত্যাদির প্রবণতা বৃদ্ধি পেয়েছে। তবে বেশ কিছু দিন ধরে বজ্রপাতে জানমালের ক্ষয়ক্ষতি অতীতের চেয়ে বৃদ্ধি পেয়েছে। এই বৃদ্ধি জলবায়ুগত এবং প্রাকৃতিক পরিবেশের উপাদানের পরিবর্তনের ফল তা সহজেই বলা যায়। রবিবার বজ্রপাতে সারা দেশে ২২ জন নিহত ও ১৫ জন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। প্রতিবছরই বাড়ছে বজ্রপাতে প্রাণহানি ও সম্পদহানির ঘটনা। কিন্তু হঠাৎ কেন বাড়ছে বজ্রপাতের ঘটনা তা নিয়ে জনমনে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। এ ব্যাপারে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দুর্যোগবিজ্ঞান ও ব্যবস্থাপনা বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মাকসুদ কামাল বলেন, বিদ্যুত্প্রবাহ মানুষের শরীর দিয়ে প্রবাহিত হয়। অনেকটা ইলেকট্রিক শকের মতো
৫ জেলায় বজ্রপাতে নিহত ১১

৫ জেলায় বজ্রপাতে নিহত ১১

অনলাইন ডেস্কঃ- পাঁচ জেলায় বজ্র পাতে অন্তত ১১ জনের মৃত্যুর খবর পাওয়া হগেছে। এছাড়া আরো অনেকেই এ ঘটনায় আহত হয়েছে। আজ রোববার সকালে এ বজ্রপাজের ঘটনা ঘটে। সিরাজগঞ্জ: সিরাজগঞ্জের কাজিপুরের বাদাম ক্ষেতে কাজ করতে গিয়ে বজ্রপাতে পিতা শামছুল হক (৫০) ও পুত্র আরফান হোসেনসহ (১৪) অন্তত পাঁচ জন নিহত হয়েছে। আজ রোববার সকালে উপজেলার তেকানী চরে বজ্রপাতে এঘটনা ঘটে। নিহত শামছুল হক ও তার পুত্র আরফান হোসেন উপজেলার তেকানী চরের বাসিন্দা। অপর ৩ জনের নাম জানা যায়নি। স্থানীয়রা জানান, আজ রোববার সকালে উপজেলার তেকানী চরে সকালে সামছুল হক ও তার পুত্র আরফান বাদাম ক্ষেতে কাজ করতে যায়। সকাল ১০টার সময় হঠাৎ প্রচন্ড ঝড়ের সময় বজ্রপাতে পিতা ও পুত্র ঘটনাস্থলেই নিহত হয়। এ ঘটনা পাশের গ্রামের আরো ৩ জনের নিহতের পাওয়া যায়। ব্রাহ্মণবাড়িয়া: ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়ায় বজ্রপাতে আবদুর রহিম (৩০) নামে এক ধানকাটা শ্রমিকের মৃত্যু হয়েছে। এ সময়
কালবৈশাখীর তাণ্ডবে ১৫ ঘরবাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত

কালবৈশাখীর তাণ্ডবে ১৫ ঘরবাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত

আল্ আমিন শাহেদঃ কালবৈশাখী ঝড়ের তাণ্ডবে অসহায় হয়ে পড়েছে ক্ষতিগ্রস্থরা। ঝড়ে ১০টি ঘরবাড়ি ও ৫টি দোকানপাট ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এছাড়া অনেক গাছপালা উপড়ে গেছে। মঙ্গলবার (২৭ মার্চ) ভোরে মাদারীপুরের শিবচর উপজেলার কুতুবপুর ইউনিয়নের মল্লিককান্দি গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, মঙ্গলবার ভোরে উপজেলার মল্লিককান্দি গ্রামে নদী ভাঙনে আশ্রিতদের এলাকায় কালবৈশাখী ঝড় আঘাত হানে। এতে ওই এলাকার ১০টি ঘরবাড়ি ও ৫টি দোকানপাট ক্ষতিগ্রস্ত হয়। তবে কোনো প্রাণহানির ঘটনা ঘটেনি। এদিকে চরম বিপাকে পড়েছেন ঝড়ে বাড়িঘর হারানো মানুষ। কাঠালবাড়ী ইউপি চেয়ারম্যান সোহেল বেপারী জানান, নদী ভাঙনে আক্রান্তদের এলাকায় কালবৈশাখী ঝড় আঘাত হানে। জরুরি ভিত্তিতে ক্ষতিগ্রস্তদের সাহায্য দেয়া হয়েছে।
উত্তরাঞ্চলের শতাধিক নদ-নদী পানিশূন্য

উত্তরাঞ্চলের শতাধিক নদ-নদী পানিশূন্য

প্রধান প্রতিবেদক-সিএননিউজঃ খরাস্রোত তিস্তাসহ উত্তরাঞ্চলের শতাধিক নদ-নদী পানিশূন্য হয়ে পড়েছে। পানির অভাবে বিলীনের পথে অনেক নদ-নদীর অস্তিত্ব। ফলে এসব নদীতে নেই মাছ, চলছে না নৌকা। এ অবস্থায় নদী অববাহিকার লাখ লাখ মানুষ নিজেদের পেশা হারিয়ে পরিবার-পরিজন নিয়ে পথে বসেছে। পাশাপাশি পানি সংকটের কারণে আবাদি জমির পরিমাণ কমে গিয়ে ধু-ধু বালুচরে পরিণত হয়েছে হাজার হাজার হেক্টর জমি। অথচ এসব নদীতে এক সময় পানি প্রবাহের গতি এতোটাই প্রবল ছিল যে, নদী পার্শ্ববর্তী হাজার হাজার হেক্টর জমি বছরের ৬ মাসই পানির নিচে তলিয়ে থাকত। নদীতে নৌ-চলাচল স্বাভাবিক ছিল। মাঝি-মাল্লাদের কণ্ঠে ভেসে উঠতো ভাওয়াইয়া, পল্লীগীতি ও ভাটিয়ালি গানের সুর। নদীর ওপর নির্ভরশীল মৎসজীবিরাও পরিবার-পরিজন নিয়ে স্বাচ্ছন্দ্যে জীবন-যাপন করতো। অথচ বর্তমানে এ অঞ্চলের নদ-নদীগুলো মরে যাওয়ার উপক্রম হওয়ায় পাল্টে গেছে সার্বিক পরিস্থিতি। সরেজমিন খোঁজ
আসছে আরেকটি শৈত্যপ্রবাহ!

আসছে আরেকটি শৈত্যপ্রবাহ!

অনলাইন ডেস্কঃ- ইতিপূর্বে আবহাওয়ার দীর্ঘমেয়াদি পূর্বাভাসে চলতি জানুয়ারি মাসে বৃষ্টি বা তীব্র শৈত্যপ্রবাহের উল্লেখ না থাকলেও সম্প্রতি পরিবর্তন আনা হয়েছে পূর্বাভাসে। এতে বলা হয়েছে, এ মাসেই বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে। এ ছাড়া দেশের উত্তর ও মধ্যাঞ্চলে ১টি মাঝারি অথবা তীব্র শৈত্যপ্রবাহ এবং অন্যত্র ২-৩টি মৃদু ও মাঝারি শৈত্যপ্রবাহ বয়ে যেতে পারে। তবে দেশজুড়ে শীতের প্রকোপ কিছুটা কমেছে। উন্নতি হয়েছে তাপমাত্রার। তবে আবহাওয়াবিদ বজলুর রশীদ জানান, আগামী দিনগুলোতে শীতের প্রকোপ বাড়তে পারে। সামগ্রিকভাবে এই শৈত্যপ্রবাহ মৃদু বা মাঝারি এবং অঞ্চলভেদে তীব্র শৈত্যপ্রবাহে রূপ নিতে পারে। এ ছাড়া আকাশ আংশিক মেঘলাসহ সারা দেশের আবহাওয়া শুষ্ক থাকতে পারে। আবহাওয়া অধিদপ্তর জানায়, তাপমাত্রা বাড়তে শুরু করলেও সহসাই এই শীত যাচ্ছে না। এ মাসের শেষ দিকে আরও একটি শৈত্যপ্রবাহের পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। প্রতিদ
শৈত্যপ্রবাহ কিছুটা প্রশমিত হলেও সহসা যশোর-খুলনাঞ্চল থেকে যাচ্ছে না ঠান্ডা

শৈত্যপ্রবাহ কিছুটা প্রশমিত হলেও সহসা যশোর-খুলনাঞ্চল থেকে যাচ্ছে না ঠান্ডা

  স্টাফ রিপাের্টার: চলতি শৈত্যপ্রবাহ এখন উত্তরাঞ্চল ও দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে স্থির হয়ে আছে। মূলত এ এলাকার ওপর দিয়েই প্রভাব বিস্তর করে আছে। ঘনকুয়াশার প্রভাবে দিনে সূর্যালোক কম পাওয়ায় যশোর ও খুলনাঞ্চলে তাপমাত্রা বাড়ছে না। যশোরে গত চারদিনই দেশের সর্বনিন্ম তাপমাত্রা ৭ডিগ্রির নীচে বিরাজ করায় ওই এলাকায় প্রচন্ড ঠান্ডা অনুভূত হচ্ছে। এই শৈত্যপ্রবাহ খুলনা পর্যন্ত বিস্তৃত। তবে ঘনকুয়াশায় খুলনার আধাবেলা সূর্যের মুখ দেখা না যাওয়ায় এখানেও তাপমাত্রা বাড়ছে না। খুলনার তাপমাত্রা সামান্য বাড়লেও তা শৈত্যপ্রবাহের কারণে গায়ে লাগছে না। ফলে তীব্রশীত অনুভূত হচ্ছে। এ অবস্থা আরও কয়েকদিন থাকতে পারে এছাড়া মাঘ মাসের ১৫তারিখ পর্যন্ত দেশের চুয়াডাঙ্গা যশোর ও খুলনা অঞ্চলে শীতের প্রভাব থাকবে। এদিকে আবহাওয়া বিভাগ জানায়, দেশের বিভিন্ন স্থানের উপর দিয়ে বয়ে যাওয়া শৈত্য প্রবাহ থেকে আরও কিছু এলাকা প্রশমিত হতে পারে।
রংপুর বিভাগে শীতজনিত রোগ ঠেকাতে দেড় হাজার টিম

রংপুর বিভাগে শীতজনিত রোগ ঠেকাতে দেড় হাজার টিম

সিএন নিউজ রংপুর প্রতিনিধিঃ-- রংপুরে গত পাঁচদিনের একটানা তীব্র শৈত্যপ্রবাহ আর হিমেল হাওয়ায় মানুষ জবুথবু হয়ে পড়েছে। শীতের তীব্রতা বৃদ্ধি পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গে দেখা দিয়েছে কোল্ড ডায়রিয়া নিউমোনিয়াসহ শীতজনিত নানান রোগ-বালাই। এসব রোগে আক্রান্ত হচ্ছে সবচেয়ে বেশি শিশু ও বৃদ্ধরা। কর্মহীন হয়ে পড়েছে নিম্নআয়ের মানুষরা। এই শীত মৌসুমে যাতে শিশু ও বৃদ্ধরা বড় ধরনের কোন রোগে আক্রান্ত না হন সে জন্য বিভাগ জুড়ে কাজ করছে ১ হাজার ৫শ ৬টি চিকিৎসা সংক্রান্ত টিম। এর মধ্যে রংপুরেই রয়েছে ২৪৪টি। মঙ্গলবার এ তথ্যটি নিশ্চিত করে রংপুর বিভাগীয় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালক ডা. মোজাম্মেল হক বলেন, শীতে আক্রান্ত মানুষজন বিশেষ করে গ্রামের মানুষরা যাতে কোন ধরনের চিকিৎসায় অবহেলা না পায় সে জন্য প্রয়োজনীয় নির্দেশ দেয়া হয়েছে। দেশের সর্বউত্তরের জেলা পঞ্চগড়ে গত সোমবার দেশের পঞ্চাশ বছরের ইতিহাসে ২.৬ ডিগ্রি তাপমাত্রা ছিল। স
ভয়াবহ শীতে ১০ জনের মৃত্যু

ভয়াবহ শীতে ১০ জনের মৃত্যু

অনলাইন ডেস্কঃ- প্রচন্ড শীতে কাঁপছে দেশ। সোমবার তেঁতুলিয়ায় তাপমাত্রা নেমেছিল ২.৬ ডিগ্রি সেলসিয়াসে। সৈয়দপুরে তাপমাত্রা নেমে যায় ২.৯ ডিগ্রি সেলসিয়াসে। এসব অঞ্চলে প্রচণ্ড শীতে জনজীবন প্রায় বিপর্যস্ত। ভয়াবহ শীতে ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে। আবহাওয়া অফিস সূত্রে জানা গেছে, ১৯৪৮ সাল থেকে আবহাওয়া অফিসে তাপমাত্রার রেকর্ড রয়েছে। দেখা যাচ্ছে ১৯৬৮ সালে শ্রীমঙ্গলে তাপমাত্রা নামে ২.৮ ডিগ্রি সেলসিয়াসে। কিন্তু সোমবার তেঁতুলিয়ায় তাপমাত্রা শ্রীমঙ্গলের রেকর্ড ভেঙেছে। প্রচণ্ড শীতে মানুষের মধ্যে শুরু হয়েছে নানা ধরনের সমস্যা। কারো ডায়রিয়া, কেউ ভুগছেন হাঁপানিতে। আবার সর্দি-কাশি খুবই সাধারণ বিষয়। কেউ কেউ ভুগছেন প্রচণ্ড মাথা ব্যথায়। হাসপাতালগুলোয় চিকিৎসকেরা সর্দি-কাশি, হাঁপানি ও ডায়রিয়ার রোগী বেশি আসছেন বলে চিকিৎসকরা জানিয়েছেন। অপর দিকে হতদরিদ্র মানুষ পড়েছেন মহাবিপাকে। অনেকে বিছানার লেপ গায়ে দিয়ে রাস্তায়
নিম্নচাপ নেই , এখন বাড়বে শীতের দাপট

নিম্নচাপ নেই , এখন বাড়বে শীতের দাপট

সিএন নিউজ জলবায়ু ডেস্কঃ-  বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট নিম্নচাপের প্রভাব কেটে গেছে। তিন দিনের বৃষ্টির মেঘও সরে যাচ্ছে। এখন শীত পড়তে শুরু করবে। আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, নিম্নচাপটি আরও দুর্বল হয়ে লঘুচাপে পরিণত হয়ে উত্তর বঙ্গোপসাগর ও বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকায় অবস্থান করছে। এর প্রভাবে গতকাল সোমবারও দেশের অনেক স্থানে বৃষ্টি হয়েছে। সারা দেশের আকাশ গতকালও ছিল মেঘাচ্ছন্ন। আজ মঙ্গলবার দেশের অধিকাংশ স্থানে এই অবস্থার পরিবর্তন হবে। এসব স্থানে আজ রোদের দেখা পাওয়া যাবে। তবে বরিশাল, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের অনেক জায়গায় এবং ঢাকা, ময়মনসিংহ ও খুলনা বিভাগের কোনো জায়গায় আজও কিছু হালকা বৃষ্টি হতে পারে। দেশের অনেক স্থানে আজও আকাশ অস্থায়ীভাবে মেঘলা থাকবে। এরই মধ্যে শীত পড়তে শুরু করবে। আবহাওয়া অধিদপ্তরের পরিচালক সামছুদ্দীন আহমেদ বলেন, নিম্নচাপের কারণে তাপমাত্রা কিছুটা বেড়ে গিয়েছিল। এখন থেকে সর্বনিম্ন তাপ
আজও গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি ঝরবে সারা দিন : আবহাওয়া অফিস

আজও গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি ঝরবে সারা দিন : আবহাওয়া অফিস

সিএন নিউজ অনলাইন ডেস্কঃ- বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত গভীর নিম্নচাপটি আজ উপকূলের কাছাকাছি অবস্থান করছে। এর ফলে সারা দেশেই সকাল থেকে বৃষ্টি ঝরছে। আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, আজ রোববার সারা দিনই বৃষ্টি ঝরবে। সকালে ঢাকা আবহাওয়া কার্যালয়ের আবহাওয়াবিদ বজলুর রহমান জানান, দেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল, দক্ষিণাঞ্চল ও মধ্যাঞ্চলে বৃষ্টির সম্ভাবনা বেশি। সারা দিন মূলত গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টিই হবে। তবে কোথাও কোথাও মাঝারি আকারে বৃষ্টিও হতে পারে। আজ বিকেল থেকে পরিস্থিতি বদলাতে শুরু করতে পারে। সে হিসেবে হয়তো কাল থেকে আকাশ পরিষ্কার হয়ে সূর্যের দেখা মিলবে। এই অবস্থায় চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মংলা ও পায়রা সমুদ্র বন্দরসমূহকে ৩ নম্বর স্থানীয় সতর্ক সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে। উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত সব মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারকে পরবর্তী সময়ে নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত নিরাপদ আশ্রয়ে থাকতে বলা হয়েছে। আবহাওয়া কার্যা
সারাদেশে ঘুড়ি ঘুড়ি বৃষ্টি সমুদ্রবন্দরগুলোকে ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত

সারাদেশে ঘুড়ি ঘুড়ি বৃষ্টি সমুদ্রবন্দরগুলোকে ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত

  এম এ শাহেদ:-- বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট লঘুচাপটি গভীর নিন্মচাপে পরিণত হয়েছে। সাগর উত্তাল রয়েছে। এ কারণে দেশের সমুদ্রবন্দরগুলোকে তিন নম্বর সতর্ক সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে। নদীবন্দরগুলোর জন্য দেখানো হয়েছে এক নম্বর সতর্ক সংকেত। এদিকে নিন্মচাপের কারণে শুক্রবার দিবাগত রাত থেকে রাজধানীতে গুড়ি গুড়ি বৃষ্টি হতে দেখা যায়। শনিবার সকাল পর্যন্ত তা অব্যাহত রয়েছে। অসময়ের এ বৃষ্টিতে ঠাণ্ডার মাত্রা বেড়ে যাওয়ায় অস্বস্তিতে পড়েছে নগরবাসী। চট্টগ্রামসহ দেশের কয়েকটি স্থানে গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টিপাত হচ্ছে। আবহাওয়া অধিদফতরের পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, গভীর নিন্মচাপের প্রভাবে উত্তর বঙ্গোপসাগরে গভীর সঞ্চালনশীল মেঘমালার সৃষ্টি হচ্ছে। উত্তর বঙ্গোপসাগর, বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকা এবং সমুদ্রবন্দরগুলোর ওপর দিয়ে ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। গভীর নিন্মচাপটির কেন্দ্রের ৪৮ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের একটানা সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘণ্টায় ৫০ ক
সাগরে নিম্নচাপ , ১ নম্বর সংকেত

সাগরে নিম্নচাপ , ১ নম্বর সংকেত

সিএন  নিউজ জলবায়ু প্রতিবেদকঃ-- বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট লঘুচাপটি নিম্নচাপে পরিণত হওয়ায় ঝড়ো হাওয়ার আশঙ্কায় দেশের সমুদ্রবন্দরগুলোকে ১ নম্বর দূরবর্তী সতর্কতা সংকেত দেখাতে বলেছে অধিদফতর। বৃহস্পতিবার সকাল ৮টায় আবওয়ার বিশেষ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, দক্ষিণ-পূর্ব বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থানরত নিম্নচাপটি সামান্য উত্তর-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হয়ে একই এলাকায় অবস্থান করছে। এটি আজ সকাল ৬টায় চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর থেকে ১৪০০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে , কক্সবাজার সমুদ্রবন্দর থেকে ১৩৩০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে, মংলা সমুদ্রবন্দর থেকে ১৩৭৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-দক্ষিণপশ্চিমে এবং পায়রা সমুদ্রবন্দর থেকে ১৩৩৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-দক্ষিণ পশ্চিমে অবস্থান করছিল। এটি আরও ঘণীভূত হয়ে উত্তর-উত্তরপশ্চিম দিকে অগ্রসর হতে পারে। নিম্নচাপ কেন্দ্রের ৪৪ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের একটানা সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘণ্টায় ৪০ কিলোমিটার, যা
লঘুচাপের কারনে সারাদেশে গুড়িগুড়ি বৃস্টিঃ সমুদ্র বন্দুরগুলোতে ৩ নম্বর সতর্কসংকেত

লঘুচাপের কারনে সারাদেশে গুড়িগুড়ি বৃস্টিঃ সমুদ্র বন্দুরগুলোতে ৩ নম্বর সতর্কসংকেত

আল্ আমিন শাহেদঃ পশ্চিম-মধ্য বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট লঘুচাপটি নিম্নচাপে পরিণত হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকাল থেকে রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে গুড়িগুড়ি বৃষ্টি হচ্ছে এই বৃষ্টি থাকবে দুই দিন আবহাওয়া অধিদপ্তরের সর্বশেষ বিশেষ সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ কথা জানানো হয়েছে। এতে বলা হয়, গতকাল বিকেল নাগাদ নিম্নচাপটি চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর থেকে এক হাজার ১৮০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে, কক্সবাজার সমুদ্রবন্দর থেকে এক হাজার ১৫০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে, মংলা সমুদ্রবন্দর থেকে এক হাজার ৩০ কিলোমিটার দক্ষিণ-দক্ষিণপশ্চিমে এবং পায়রা সমুদ্রবন্দর থেকে এক হাজার ৪৫ কিলোমিটার দক্ষিণ-দক্ষিণপশ্চিমে অবস্থান করছিল। এটি আরো ঘণীভূত হয়ে উত্তর দিকে অগ্রসর হতে পারে। নিম্নচাপ কেন্দ্রের ৪৪ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের একটানা সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘণ্টায় ৪০ কিলোমিটার, যা দমকা ঝড়ো হাওয়া আকারে ৫০ কিলোমিটার পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। নিম্নচাপ কেন্দ্র
ঝুঁকির তালিকায় আবারও ষষ্ঠ বাংলাদেশ

ঝুঁকির তালিকায় আবারও ষষ্ঠ বাংলাদেশ

সিএন নিউজ ডেস্কঃ-  জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ দেশগুলোর তালিকায় বাংলাদেশ ষষ্ঠ অবস্থানেই রয়ে গেছে। ১৯ বছর ধরে দুর্যোগের সংখ্যা, মৃত্যু, ক্ষয়ক্ষতির মোট হিসাবের ভিত্তিতে তৈরি ‘বৈশ্বিক জলবায়ু ঝুঁকি সূচক ২০১৮’ শীর্ষক প্রতিবেদনে এই তথ্য উঠে এসেছে। তবে শুধু গত বছরের হিসাবে তালিকায় বাংলাদেশের অবস্থান ১৩। জার্মানভিত্তিক আন্তর্জাতিক সংস্থা জার্মান ওয়াচ ১৯৯৭ থেকে ২০১৬ সালের মধ্যে বিশ্বের ২০০টি দেশে জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব নিয়ে ওই প্রতিবেদন তৈরি করেছে। এতে এবারই প্রথমবারের মতো ক্ষতিগ্রস্ত শীর্ষ ১০ দেশের তালিকায় যুক্তরাষ্ট্রের নাম উঠে এসেছে। বিশ্ব জলবায়ু সম্মেলন চলাকালে ওই সংস্থা জলবায়ু ঝুঁকিতে থাকা দেশের তালিকাটি প্রকাশ করে থাকে। তারা ২০০৮ সাল থেকে ওই তালিকা প্রকাশ করে আসছে। এ বছরে ৯ নভেম্বর ওই প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে। জার্মানির বনে জাতিসংঘের ২৩তম জলবায়ু সম্মেলনে স্বল্পোন্
ব্রহ্মপুত্রের পানি নিতে ১ হাজার কিলোমিটারের টানেন খুঁড়ছে চীন

ব্রহ্মপুত্রের পানি নিতে ১ হাজার কিলোমিটারের টানেন খুঁড়ছে চীন

মোঃ আল আমিন হিমালয় পর্বতের কৈলাস শৃঙ্গের মানস সরোবর থেকে উৎপন্ন হয়ে তিব্বত ও আসামের ভিতর দিয়ে প্রবাহিত হয়ে কুড়িগ্রামের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে ব্রহ্মপুত্র নদ। চীনে যাকে ইয়ারলুং সাংপো নামে ডাকা হয়। এবার এই নদের পানির গতিপথ পাল্টে দিতে এক উচ্চাকাঙ্ক্ষী পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে চীন। এক হাজার কিলোমিটারের টানেন খুঁড়ে তারা তিব্বত থেকে এ নদের পানি উত্তরে চীনের শিনজিয়াং প্রদেশে নিয়ে আসতে চাইছে।  সাউথ চায়না মর্নিং পোস্টের (এসসিএমপি) এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, চীনা প্রকৌশলীরা এই দীর্ঘ সুড়ঙ্গ খননের কারিগরি বিষয় নিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করছে। চীনের পরিকল্পনা অনুসারে, দক্ষিণ তিব্বতের ইয়ারলুং সাংপো নদীর পানির শিনজিয়াংয়ের টাকলামাকান মরুভূমিতে নিয়ে আসা। তবে বিশ্বের সবচেয়ে দীর্ঘতম সুড়ঙ্গ খুঁড়ে যতোই নিজের তেষ্টা মেটাক না চীন, এতে করে প্রতিবেশী দু’দেশের সঙ্গে এর সমবন্টন সম্পর্কে বড় একটা ধাক্কা খেত
ভোরে কুয়াশা দিনে গরম রাতে ঠান্ডা

ভোরে কুয়াশা দিনে গরম রাতে ঠান্ডা

সিএন নিউজ২৪ ডেস্কঃ-  শীতকাল কি এবার আগেই এসে পড়ল। দিনে-রাতে তিন রকম আবহাওয়া। ভোরে কুয়াশা, দিনে গরম আর রাতের বেলা ঠান্ডা। কয়েকদিন আগেও ফ্যান না চালিয়ে রাতে ঘুমানো যেত না। কিন্তু এখন ফ্যান না চালিয়েই ভালো ঘুম হয়। রাজধানীর লালবাগ খাজে দেওয়ানের বাসিন্দা আহসান আলী শনিবার ভোরে প্রাতঃভ্রমণে বের হয়ে নিত্যদিনের হাঁটার সঙ্গী রহমত আলীকে উদ্দেশ্য করে এ কথাগুলো বলছিলেন। রহমত আলী সহমত প্রকাশ করে বললেন, ঠান্ডা অনুভূত হলেও রাজধানীতে শীত এখনও নামেনি। আবহাওয়ার রকমফের নিয়ে এমন আলোচনা এখন নগরবাসীর মুখে মুখে। আবহাওয়া অধিদফতর বলছে, রাজধানীতে শীত আসতে এখনও অনেকটা সময় বাকি। নভেম্বরের মাঝামাঝি সময় থেকে শীত শুরু হবে। তবে দেশের উত্তরবঙ্গের রংপুর ও রাজশাহীসহ বিভিন্ন জেলায় ইতোমধ্যেই শীত জেঁকে বসতে শুরু করেছে। আবহাওয়া অধিদফতরের ডিউটি অফিসার রুহুল কুদ্দুস শনিবার সকালে বলেন, রাজধানীতে সকালে কুয়াশা পড়লেও দ
রামগতিতে ঘূর্ণিঝড়ে পাঁচশতাধিক ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত, ব্যাপক ক্ষতি

রামগতিতে ঘূর্ণিঝড়ে পাঁচশতাধিক ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত, ব্যাপক ক্ষতি

সিএন নিউজ২৪ লক্ষীপুর প্রতিনিধিঃ- লক্ষ্মীপুর জেলার রামগতিতে ঘূর্ণিঝড়ে ৩টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, ৫টি মসজিদ, ৪টি পল্ট্রি খামার, অসংখ্য মৎস্য খামার সহ প্রায় পাঁচশতাধিক ঘরবাড়ি বিধ্বস্ত হয়েছে। এ সময় ফসলেরও ব্যাপক ক্ষতি হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। উপড়ে পড়েছে হাজারো গাছপালা। ২১ অক্টোবর (শনিবার) সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত রামগতি উপজেলার মেঘনার উপকূলীয় বড়খেরী, চরগাজী, চর আবদুল্যাহ, চর আলগী, চর রমিজ ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায় এ ঝড় বয়ে গেছে। বিকেলে রামগতি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান অধ্যাপক আবদুল ওয়াহেদ ক্ষতিগ্রস্ত এলাকা পরিদর্শন করে এবং ক্ষতিগ্রস্তদের সহায়তার প্রদানের আশ্বাস দিয়েছেন। এদিকে ঝড়ের শুরু হওয়ার সাথে সাথে বিদ্যুৎ ব্যবস্থা বন্ধ হয়ে যায়। অন্যদিকে উপজেলার বিছিন্ন ইউনিয়ন চর আবদুল্যাহ থেকে প্রবল জোয়ারের পানিতে ভেসে আসে ১১টি মহিষ। বর্তমানে বড়খেরী ইউনিয়নের চেয়ারম্যানের দায়িত্বে রয়েছে ওই মহিষগুলো। উপ
বৃষ্টি থাকবে আরো ২ দিন

বৃষ্টি থাকবে আরো ২ দিন

সিএন নিউজ২৪ জলবায়ু ডেস্কঃ-  গভীর সমুদ্রে সৃষ্ট নিম্নচাপ ও সঞ্চারিত মেঘমালার কারণে শনিবার দিনভর বৃষ্টি হচ্ছে। তবে বৃষ্টি হওয়ায় জনজীবনে নেমে এসেছে বিপর্যয়। টানা বৃষ্টিতে নগরীর নিচু রাস্তায় পানি জমে গেছে। আবহাওয়া অধিদফতরের বরিশাল কার্যালয়ের পর্যবেক্ষক মো. আনিচুর রহমান জানান, সমুদ্রে নিম্নচাপ সৃষ্টি হওয়াতে বরিশাল নদী বন্দরের জন্য ২ নম্বর ও পায়রা সমুদ্র বন্দরের জন্য ৩ নম্বর সতর্ক সংকেত বলবৎ রয়েছে। এদিকে নদীবন্দরে ২ নম্বর সতর্কতা সংকেত জারি থাকার পরও স্বাভাবিক নিয়মেই লঞ্চ চলাচল করছে বলে জানিয়েছেন বিআইডব্লিউটিএ-এর নৌ নিরাপত্তা ও ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা বিভাগের উপ পরিচালক আজমল হুদা সরকার মিঠু। আ্যাকুওয়েদার বলছে সোমবারের আগে রোদ ঊঠার সম্ভাবনা কম। শুক্রবার রাতে মাঝেমধ্যে বৃষ্টি হলেও,রবিবার ও বজ্রসহ ভারী বৃষ্টির হতে পারে।
নিম্নচাপের প্রভাবে দেশ জুড়ে ভারী বর্ষণ

নিম্নচাপের প্রভাবে দেশ জুড়ে ভারী বর্ষণ

সিএন নিউজ২৪ জলবায়ু ডেস্কঃ-  স্থল নিম্নচাপের কারণে সারা দিন বৃষ্টিপাত অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদফতর। রাজধানীতে গত ২৪ ঘণ্টায় ৫০ মিলিমিটার বৃষ্টিপাত রেকর্ড করা হয়েছে। এদিকে উপকূলীয় উড়িষ্যা ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থানরত নিম্নচাপটি বৃষ্টি ঝরিয়ে ক্রমান্বয়ে দুর্বল হয়ে যাবে বলে পূর্ভাবাসে বলা হয়েছে। আজ সকালে আবহাওয়া অফিসের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, রাজধানীসহ সারা দেশে ভারী বর্ষণের মাধ্যমে নিম্নচাপটি দুর্বল হয়ে যাবে। এতে বলা হয়, উপকূলীয় উড়িষ্যা ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থানরত নিম্নচাপটি উত্তর-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হয়ে শুক্রবার সকাল ৬টায় স্থল নিম্নচাপ হিসেবে উড়িষ্যা ও তৎসংলগ্ন এলাকায় অবস্থান করছিল। এটি আরও উত্তর-উত্তরপূর্ব দিকে অগ্রসর হয়ে ক্রমান্বয়ে দুর্বল হয়ে যেতে পারে। এর প্রভাবে উত্তর বঙ্গোপসাগর এলাকায় বায়ুচাপের তারতম্যের আধিক্য বিরাজ করছে এবং গভীর সঞ্চারণশীল মেঘমালা তৈরি অব্যা
কয়েকদিনের ভারী বর্ষণে পাইকগাছায় বেড়িবাঁধ ক্ষতিগ্রস্ত

কয়েকদিনের ভারী বর্ষণে পাইকগাছায় বেড়িবাঁধ ক্ষতিগ্রস্ত

মো: আল নোমানঃ- পাইকগাছায় বৈরী আবহাওয়ার প্রভাবে গত ৩ দিনের ভারী বৃষ্টিপাতে ব্যাহত হচ্ছে দৈনন্দিন কার্যক্রম। বিঘ্নিত হচ্ছে বিদ্যুৎ সরবরাহ, বিপর্যস্থ হয়ে পড়েছে জনজীবন। ঝুকিপূর্ণ হয়ে পড়েছে বিভিন্ন স্থানে ওয়াপদার বেড়িবাঁধ। বৈরী আবহাওয়ার প্রভাবে গত রোববার সকাল থেকে উপকূলীয় পাইকগাছায় শুরু হয় ঝড়োহাওয়া ও ভারী বৃষ্টিপাত। যা মঙ্গলবার পর্যন্তও অব্যাহত থাকে। ৩ দিনের ঝড়োহাওয়া ও ভারী বৃষ্টিপাতে মারাত্মকভাবে ব্যাহত হয়েছে সাধারণ মানুষের দৈনন্দিন কার্যক্রম। বিশেষ করে কোন কাজ করতে না পারায় চরম দূর্ভোগে রয়েছে নিম্ন আয়ের দিন মজুর মানুষেরা। বান্দিকাটী গ্রামের ইউনুছ আলী গোলদার জানান, দিন মজুরের কাজ করে আমার সংসার চলে। বৈরী আবহাওয়ার কারণে গত ৩ দিন কোন কাজ করতে পারেনি। ফলে কিছুটা হলেও পরিবার পরিজন নিয়ে দূর্ভোগে রয়েছি। অপরদিকে ভারী বর্ষণ ও ঝড়োহাওয়ায় দেখা দেয় বিদ্যুৎ বিপর্যয়। রবিবার বিকাল থেকে সোমবার
এই শরতেও গরম আর ঘনঘোর বর্ষা

এই শরতেও গরম আর ঘনঘোর বর্ষা

সিএন নিউজ২৪ ডেস্কঃ-  শরতের স্বচ্ছ ঘননীল আকাশে ওড়ে বেড়ায় সাদা মেঘ। হালকা হয়ে আসে রোদের তেজ। প্রকৃতিতে দেখা দেয় হেমন্তের আগমনী বার্তা। কিন্তু এবারের শরৎ যেন উল্টা বার্তা হয়ে এনেছে। চলছে শ্রাবণের মতো ঘনঘোর বৃষ্টি। আবার কখনওবা গ্রীষ্মের মতো তীব্র গরম। অন্তত গত কয়েকদিনের আবহাওয়া তাই বলছে। ঝুম বৃষ্টি আর অন্ধকার করা মেঘ কেবলই মনে করিয়ে দেয় আষাঢ় কিংবা শ্রাবণ মাসের কথা। এ যেন শরতে ‘ঘনঘোর বর্ষা’। আষাঢ় ও শ্রাবণে ভর করে বর্ষা বিদায় নিয়েছে সেই কবে। আশ্বিনের হাত ধরে শরৎ এসেছে। রোববার আশ্বিনের ১৬ তারিখ। হেমন্তও আসি আসি করছে। কিন্তু প্রকৃতিতে এর কোনো প্রভাব নেই। কেন এত বৃষ্টি? আবহাওয়াবিদরা জানিয়েছেন, মৌসুমী বায়ু সক্রিয় হওয়ার কারণেই এই মেঘ-বৃষ্টি। এটা দু’একদিনের মধ্যে কেটেও যাবে। তবে বৃষ্টির এই প্রবণতা কাটতে অপেক্ষা করতে হবে ১০ অক্টোবর পর্যন্ত। শুধু গত কয়েকদিন ধরেই নয় সদ্য শেষ হওয়া সেপ্টেম্বর