প্রচ্ছদ / আন্তর্জাতিক / যদি ভ্যাকসিন আবিষ্কার না হয়!

যদি ভ্যাকসিন আবিষ্কার না হয়!

অনলাইন ডেস্ক:

করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিনের জন্য দিন-রাত এক করে চেষ্টা করে যাচ্ছেন বিজ্ঞানীরা। বেশ কয়েকটি দেশেই আলাদাভাবে এই চেষ্টা চলছে, তবে এখনো আলোর মুখ দেখা যায়নি। অধিকাংশ বিজ্ঞানীর মত, আবিষ্কার হয়ে সেটা মানুষের হাতে পৌঁছাতে নিদেনপক্ষে আরো ১ বছর সময় লাগবে। সে পর্যন্ত না হয় অপেক্ষা করা গেল, কিন্তু যদি কখনোই করোনাভাইরাসের প্রতিষেধক আবিষ্কার না হয়, তাহলে কী হবে?

চিকিৎসা বিজ্ঞানীদের পক্ষ থেকে এই প্রশ্নের সোজা উত্তর হল- তেমনটা হলে মানুষ এই ভাইরাসের সঙ্গে নিজেকে খাপ খাইয়ে নেবে। শরীরে প্রাকৃতিকভাবেই এন্টিবডি তৈরি হবে, যার মাধ্যমে মানুষ এই ভাইরাসকে প্রতিরোধ করতে পারবে।

তাহলে কি ভ্যাকসিন না আসলেও একসময় সম্পূর্ণ নির্মূল হয়ে যাবে এই ভাইরাস? বিজ্ঞানীরা বলছেন, অবশ্যই নয়; একমাত্র ভ্যাকসিনেই সম্পূর্ণ নির্মূল সম্ভব। তা না হলে করোনাভাইরাসের শক্তি হয়তো অনেকখানি কমে যাবে। কিন্তু সবসময়ই কম-বেশি সংখ্যক মানুষ আক্রান্ত হতে থাকবেন, মারাও যেতে থাকবেন অনেকে।

সিএনএনের এ সংক্রান্ত এক প্রতিবেদনে জানানো হয়, ভ্যাকসিন আবিষ্কার হোক কিংবা না হোক, এক সময় শহরগুলো আস্তে আস্তে খুলতে থাকবে। মানুষ রাস্তায় নামবে, অফিস-আদালত-কারখানাগুলোতে ফিরে আসবে চাঞ্চল্য। হাসপাতালগুলোতে করোনা চিকিৎসার জন্য আলাদা ইউনিট থাকবে। মানুষ করোনাভাইরাসের সংক্রমণকে আর দশটা রোগের মতো স্বাভাবিকভাবে মেনে নিতে শুরু করবে।

করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন না-ও আবিষ্কার হতে পারে, এমন আশঙ্কার পেছনে কারণ আছে। এর আগেও কিছু কিছু ভাইরাসের প্রতিষেধক আবিষ্কার হয়নি। যেমন এইচআইভি, ম্যালেরিয়ার কার্যকর কোনো ভ্যাকসিনও এখনও পৃথিবীতে নেই। এইচআইভির প্রতিষেধক আবিষ্কারের ঘোষণা বেশ কয়েকবারই দেওয়া হয়েছিল, কিন্তু কার্যকারিতার প্রমাণের ক্ষেত্রে সেগুলো মুখ থুবড়ে পড়েছে বারবার।

এছাড়াও চেক করুন

নাঙ্গলকোটে জাতীয় শোক দিবস পালিত

নিজস্ব সংবাদদাতাঃ- কুমিল্লার নাঙ্গলকোট উপজেলায় ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে উপজেলার বঙ্গবন্ধু‌ মুড়্যালে আজ …